লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি-কংগ্রেসে তরজার লড়াই
On 24 Mar, 2019 At 10:46 PM | Categorized As Main Slideshow | With 0 Comments
14 Shares

নিজস্ব প্রতিনিধি, আগরতলা, ২৩ মার্চ৷৷ লোকসভা ভোটের মুখে জমে উঠেছে রাজ্যের রাজনৈতিক হাওয়া৷ বিজেপি এবং কংগ্রেসের সর্বভারতীয় নেতৃত্বদের বক্তব্যকে টেনে এনে রাজ্যের কংগ্রেস ও বিজেপি নেতৃত্ব রীতিমতো তরজায়৷ শনিবার দুই দলের তরফ থেকেই সাংবাদিক সম্মেলন করে পরস্পরের বিরুদ্ধে তোপ দাগে৷

সর্বভারতীয় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর ত্রিপুরা সফরের পর দলের প্রদেশ শিবির আরও চাঙ্গা হয়ে উঠছে৷ ইতিমধ্যে প্রদেশ কংগ্রেসে দেড় হাজারের বেশি পরিবার যোগ দিয়েছে৷ এমনটাই দাবি করেছেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেসের উপ-সভাপতি পীযূষ বিশ্বাস৷

শনিবার সন্ধ্যায় আগরতলায় কংগ্রেস ভবনে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে এই দাবি করেছেন পীযূষ৷ তিনি বলেন, ২০১৪ সালে দেশবাসীকে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদী৷ ক্ষমতায় আসার পর দেশের ধনীদের স্বার্থে কাজ করে চলেছেন৷ পুরনো কাসুন্দি এবং যে বিষয়ে ইতিমধ্যে স্পষ্টীকরণ পাওয়া গেছে সেই ১০ টাকার পোশাক প্রসঙ্গ তুলেছেন কংগ্রেসের প্রদেশ নেতা৷ তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী ক্ষমতায় বসার এক বছরের মধ্যে কী করে ১০ লক্ষ টাকা দামের পোশাক পরেন? তার হিসাব কোথায়? সাধারণ মানুষ তাঁর মিথ্যাচার ধরে ফেলেছেন৷ তাই এবার আর মোদীর ক্ষমতায় আসা হচ্ছে না৷ সাধারণ মানুষ তাঁদের ভুল বুঝতে পেরে বিজেপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন৷ এবার দিল্লির ক্ষমতায় আসছে কংগ্রেস৷

পীযূষ বিশ্বাস একইভাবে ত্রিপুরায় বিজেপি সরকারেরও সমালোচনা করেছেন৷ তিনি বলেন, দিল্লির মতো ত্রিপুরায়ও বিজেপি সাধারণ মানুষদের মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছে৷ তাঁরা এক বছরে প্রদত্ত প্রতিশ্রুতির কিছুই পালন করতে পারেনি৷
এদিকে, নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপি থেকে বহিষৃকত নেতা বিদ্যুৎ ঘোষ আজ কংগ্রেসে যোগদান করেছেন৷ তাঁর সঙ্গে আরও ৪০ পরিবারের ভোটাররা কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন৷ কংগ্রেসে যোগ দিয়ে বিদ্যুৎ ঘোষ বলেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সিপাহিজলা জেলার কমলাসাগর এলাকায় একটি সভা হবে৷ ওই সভায় উপস্থিত থাকবেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মণ৷ অনুষ্ঠেয় সভায় শতাধিক পরিবার কংগ্রেসে যোগ দেবেন বলেও দাবি করেন তিনি৷

এদিকে, প্রদেশ কংগ্রেসের পর এবার বিজেপি-র রাজ্য কমিটি খোদ সর্বভারতীয় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানাবে৷ শনিবার সন্ধ্যায় ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপি-র সদর কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে এ কথা জানান দলের প্রদেশ মুখপাত্র ডা অশোক সিনহা৷
ডা সিনহা বলেন, গত ২০ মার্চ ত্রিপুরার খুমলুংয়ে অনুষ্ঠিত জনসভায় কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর বক্তব্যগুলির আগাগোড়াই আদর্শ নির্বাচনি আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেছে৷ তাই তাঁরা এই বিষয়গুলির উল্লেখ করে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করবেন৷ তিনি বলেন, রাহুল তাঁর বক্তব্যে বার বার বলেছেন, বিজেপি-র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ খুনের সঙ্গে জড়িত৷ ইউপিএ সরকারের আমলে অমিত শাহকে একটি খুনের মামলায় চক্রান্ত করে জড়ানো হয়েছিল৷ কোনও প্রমাণ নেই বলে পরবর্তীতে ওই অভিযোগ থেকে তাঁকে নিদর্োষ বলে রায় দিয়েছে আদালত৷ তিনি বলেন, এছাড়াও সেদিনের জনসভায় বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে রাহুল গান্ধী বলেছিলেন, রাফেল ডিল ইউপিএ সরকারের সময় স্থির হয়েছিল৷ কিন্তু পরবর্তী সময় মোদী ফ্রান্সে গিয়ে এই ডিল বাতিল করে নতুন করে আবার ডিল করেন৷ ডা সিনহা বলেন, এ ধরনের বক্তব্যের কোনও সারবেত্তা নেই৷ আদলতও এ ব্যাপারে খোলসা করে দিয়েছে৷ তাছাড়া, ইউপিএ সরকারের প্রতিরক্ষমন্ত্রী সংসদের বাইরে বলেছিলেন, ভারত রাফেল যুদ্ধবিমান কিনবে, এতো টাকা কোথায়৷ রাহুল নাকি আরও বলেছিলেন, অনিল আম্বানি মোদীর সঙ্গে ফ্রান্সে গিয়ে ৩০ হাজার কোটি টাকা নিয়ে এসেছেন রাফেল ইস্যুতে৷ এ ঘটনাও মিথ্যা৷ অন্য সময় এ সব ব্যাপারে যে কেউ অভিযোগ করতে পারে৷ কিন্তু আদর্শ নির্বাচনি আচরণ বিধি বলে নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষনার পর কারও বিরুদ্ধ এভাবে অভিযোগ করা যায় না৷ তাঁর অভিযোগের প্রমাণ হিসেবে ডা সিনহা নির্বাচন কমিশনের মডেল কোড অব কন্ডাক্ট শীর্ষক পুস্তিকা থেকে কিছু অংশ উপস্থিত সাংবাদিকদের পড়ে শোনান৷ এ-সব অভিযোগে ভিত্তিতেই বিজেপি রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানাবে বলে জানান তিনি৷ সাংবাদিক সম্মেলনে ডা সিনহা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দলের অন্যতম মুখপাত্র নবেন্দু ভট্টাচার্য৷

14 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION