এডিসি বন্ধ ডাকল বিরোধী ফোরাম
On 11 Jan, 2019 At 03:40 AM | Categorized As Main Slideshow | With 0 Comments
29 Shares

নিজস্ব প্রতিনিধি, আগরতলা, ১০ জানুয়ারী৷৷ মাধববাড়িতে ছয় উপজাতি যুবকের গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় রাজস্ব মন্ত্রী তথা আইপিএফটির সভাপতি এন সি দেববর্মাকে পাশে বসিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব মেজিস্ট্রেট তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন৷ এদিকে, ক্ষমতাসীন জোটের শরিক আইপিএফটির সাধারণ সম্পাদক মেবার কুমার জমাতিয়া ওই ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবী করেছেন৷ কার্যত ,ক্ষমতায় থেকে আইপিএফটি সরকার ও দল বাঁচাতে দ্বিমুখী নীতির সংকটে পড়েছে৷ এদিকে, বিরোধী উপজাতি দল ও সংগঠনের যৌথ ফোরাম মাধববাড়ীর ঘটনার ম্যাজিস্ট্রেট তদন্ত নস্যাৎ করে দিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবীতে শনিবার এডিসি এলাকায় ১২ ঘন্টার বন্ধের ডাক দিয়েছে৷ ফলে, মাধববাড়ীর ঘটনায় উপজাতি রাজনীতির গতিপথ নতুন মোড় নিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

গত ৮ জানুয়ারি নেসুর ডাকা উত্তর-পূর্র্বঞ্চল বন্ধের দিনে জিরানীয়া মাধব বাড়িতে ৬ জন আন্দোলনকারী গুলি বিদ্ধ হওয়ার ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার৷ বৃহস্পতিবার মহাকরণে মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান৷ এদিনের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তিনি৷ ঘটনার আসল রহস্য উদ্ঘাটনের জন্য রাজ্য সরকার দ্রুত উচ্চ পর্র্যয়ের এই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ঘটনায় আহত প্রত্যেকের চিকিৎসার ব্যয়ভার রাজ্য সরকার বহন করবে বলেও জানান তিনি৷ উল্লেখ্য, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা রাজ্যজুড়ে রাজনীতির উত্তেজনার পারদ তুঙ্গে উঠেছে৷ গোটা উত্তরপূর্র্বঞ্চলেই এই ইস্যুতে আন্দোলন মাথাচারা দিয়ে উঠার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে৷
জিরানীয়ার মাধববাড়িতে ৮ জানুয়ারি সংঘটিত ঘটনায় ম্যািেজস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্ত করা হবে৷ আজ মহাকরণের প্রেস কনফারেন্স হলে এক সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব এই সিদ্ধান্তের কথা জানান৷ উপস্থিত ছিলেন রাজস্বমন্ত্রী নরেন্দ্র চন্দ্র দেববর্মা৷ মুখ্যমন্ত্রী শ্রীদেব বলেন, রাজ্যের আইন -শৃঙ্খলাকে বিনষ্ট করে রাজ্যের স্বাভাবিক পরিবেশকে নষ্ট করার জন্য একটি চক্রান্তকারী গোষ্ঠী এই প্রয়াস নিয়েছিলো৷ রাজ্যের মানুষ সেটাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ মুখ্যমন্ত্রী শ্রীদেব এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান৷ তিনি বলেন, গণতান্ত্রিক পদ্দতিতে যে কোনও দলের আন্দোলন করার অধিকার রয়েছে৷ তবে সেই আন্দোলনের নামে পাথর নিক্ষেপ বা অগ্ণি সংযোগের মতো ঘটনাকে কখনোই সরকার বরদাস্ত করবে না৷ তিনি বলেন, এই ঘটনাসমূহ কম সময়ের মধ্যেই তদন্ত করে জনসমক্ষে তুলে ধরা হবে এবং ঘটনায় জড়িয়ে প্রকৃত দোষীদের আইনানুসারে শাস্তি প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে৷ মুখ্যমন্ত্রীি জানান, এই ঘটনায় তিনজন নাগরিক আহত হয়েছেন৷ তাদের মধ্যে একজনকে উন্নত চিকিৎসার জদন্য কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং সেখানে চিকিৎসা চলছে৷ বাকি আহত দু’জন জিবি হাসপাতলে চিকিৎসাধীন৷ তারা সকলেই সুস্থ রয়েছেন৷ তাদের চিকিৎসার জন্য সরকারজ্ঞক পক্ষ থেকে সহায়তা করা হচ্ছে৷ এই ঘটনায় একজন টিএসআর জওয়ান সহ কয়েকজন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, তদন্তের পরেই এ ঘটনায় কারা কারা জড়িত তার প্রকৃত তথ্য বেরিয়ে আসবে৷ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ করার বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে পক্ষে ও বিপক্ষে মতামত থাকতে পারে৷ সেটা সংসদ ও বিধানসভার ভেতরে কিংবা বাইরেও হতে পারে৷ তিনি বলেন, বিরোধিতা করার ক্ষেত্রে অবশ্যই তা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে করা উচিত৷ অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে করলে সরকার এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানান৷ সাংবাদিকদের প্রশ্ণের উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারের মূল দিশাই হচ্ছে রাজ্যের উন্নয়ন৷

এদিকে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যুতে নর্থ-ইস্টার্ন স্টুডেন্ট অর্র্গনাইজেশন নেসু গোটা উত্তরপূর্র্বঞ্চলে ১১ ঘণ্টার বন্ধের ডাক দিয়েছিল গত ৮ জানুয়ারি৷ টিএসএফ নেসুর সদস্য৷ নেসু এই বন্ধের সমর্থনে জিরানীয়ার মাধব বাড়িতে আসাম-আগরতলা জাতীয় সড়কের অবরোধ সৃষ্টি করেছিল৷ এ নিয়ে বিরোধী জেরেই গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে৷ এদিকে, রাজ্যের উপজাতি কল্যাণ মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া ৮ জানুয়ারির গুলি কাণ্ডের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন৷ ওই দিনের আন্দোলনে তার দল আইপিএফটি জড়িত ছিল না বলে তিনি স্পষ্টীকরণ দিয়েছেন৷ আইপিএফটির কোন সদস্যও গুলিবিদ্ধ হয়নি বলে জানান তিনি৷ তবে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে উচ্চপর্র্যয়ের তদন্তের দাবি জানিয়েছে উপজাতি কল্যাণমন্ত্রী মেবার জমাতিয়া৷ এক মাসের তদন্ত শেষ করে রাজ্য সরকারের কাছে রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য তিনি দাবি জানিয়েছেন৷
অন্যদিকে, নর্থ ইস্ট স্টুডেন্ট অর্র্গনাইজেশন নেসুর ডাকা ৮ জানুয়ারির বন্ধকে কেন্দ্র করে ত্রিপুরার জিরানীয়ার মাধব বাড়িতে পুলিশের গুলি চালানোর ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ১২ জানুয়ারি এডিসি এলাকায় বন্ধের ডাক দিয়েছে ত্রিপুরা উপজাতি ভিত্তিক ৮টি আঞ্চলিক দল ও সংগঠন৷ এগুলির মধ্যে রয়েছে, আইএনপিটি, আইপিএপটি (তিপ্রাহা), টিএসপি, এনসিটি, টিএসএফ৷ এদিন আগরতলায় যৌথভাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই দলগুলির নেতৃত্বরা জানান, গত ৮ জানুয়ারি জিরানীয়ার মাধব বাড়িতে নেসুর ডাকা উত্তর-পূর্র্ব—চল বন্ধের দিন হিংসাত্মক ঘটনায় ছয়জন গুরুতরভাবে আহত হয়েছিলেন৷ তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ সুমিত দেববর্র্ম নামে একজনকে আগরতলা থেকে কলকাতায় উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয়েছে৷

জাতীয় নাগরিকত্ব বিল সংশোধন এর প্রতিবাদে এই বন্ধে ত্রিপুরা আঞ্চলিক দলগুলো শামিল হযেছিল৷ বন্ধ চলাকালে জিরানীয়ার মাধব বাড়িতে পুলিশ আন্দোলনাকারীদের উপরগুলি চালিয়েছিল বলে অভিযোগ৷ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা রাজ্যজুড়ে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে৷ ত্রিপুরার উপজাতি সংগঠনগুলো ঐক্যবন্ধ ভাবে এই ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলনে শামিল হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে৷ ছয়টি আঞ্চলিক দল বৃহস্পতিবার আগরতলায় এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে মিলিত৷ বৈঠকে শেষে আঞ্চলিক দলগুলোর পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয় আগামী ১২ই জানুয়ারি ত্রিপুরা স্ব-শাসিত জেলা পরিষদ এলাকায় বন্ধের ডাক দেওয়া হয়েছে৷ সংগঠনগুলোর মধ্যে টি এসএফ আইএনপিটি, আইপিএফটি তিপ্রাহা সহ অন্যান্য কয়েকটি আঞ্চলিক সংগঠন৷ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আগরতলায় আযোজিত সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেন গত ৮ জানিযারি বন্ধ চালাকালে বিনা পররোচনায় পুলিশ আন্দোলনাকারীদের উপর গুলি চালিয়েছে৷

29 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION