১০ রাজ্যে ঝড়-বৃষ্টির তাণ্ডব : মৃত্যু ৪০-এরও বেশি মানুষের
On 17 Apr, 2019 At 10:32 PM | Categorized As Main Slideshow | With 0 Comments
0 Shares

নয়াদিল্লি, ১৭ এপ্রিল (হি.স.): প্রবল ঝড়-বৃষ্টি, একইসঙ্গে বজ্রাঘাতে বিপর্যস্ত মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, গুজরাট, মহারাষ্ট্র, পঞ্জাব, উত্তর প্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, ঝাড়খণ্ড এবং উত্তর-পূর্বের রাজ্য অসম ও মণিপুর| বিগত দু’দিনের প্রাকৃতিক দুর্যোগে শুধুমাত্র মধ্যপ্রদেশেই প্রাণ হারিয়েছেন অন্ততপক্ষে ১৫ জন| রাজস্থানের বিভিন্ন প্রান্তে ঝড়-বৃষ্টির তাণ্ডবে এখনও পর্যন্ত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে| এছাড়াও পশ্চিম ভারতের রাজ্য গুজরাটে বিগত ৪৮ ঘন্টায় প্রবল ঝড়-বৃষ্টি ও বজ্রাঘাতে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে| মণিপুরেও বিগত ৪৮ ঘন্টায় মহিলা-সহ ৩ জনের মৃত্যু, মহারাষ্ট্রের নাসিকে বজ্রাঘাতে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে| এছাড়াও পঞ্জাবে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে, উত্তর প্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, ঝাড়খণ্ড ও অসমে ঝড়-বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে|

মধ্যপ্রদেশ : অসময়ের বৃষ্টি ও বজ্রাঘাতে মধ্যপ্রদেশে অকালেই প্রাণ হারিয়েছেন ১৫ জন| এছাড়াও রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ঝড়-বৃষ্টির তাণ্ডবে আহতের সংখ্য প্রচুর| প্রশাসন সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতের ঝড়-বৃষ্টি ও বজ্রাঘাতে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে, ধার এবং শাজাপুরে ৩ জন করে প্রাণ হারিয়েছেন| রতলামে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে| এছাড়াও আলিরাজপুর, রাজগড়, সেহোর এবং ছিন্দওয়ারা জেলায় একজন করে প্রাণ হারিয়েছেন| পুলিশ সুপার (এসপি) বীরেন্দ্র সিং জানিয়েছেন, ধার জেলার পিপাল্লা এবং দহি গ্রামে বজ্রাঘাতে দু’টি শিশুর মৃত্যু হয়েছে| মালপুরা গ্রামে বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে এক বছরের একটি শিশুর এবং ৩ জন আহত হয়েছেন| এছাড়াও ইন্দোরের হাটোদ এলাকায় ঝড়-বৃষ্টির সময় গাছের নিচে দাঁড়িয়ে থাকাকালীন মৃত্যু হয়েছে কিশোর-কিশোরী-সহ ৩ জনের| শাজাপুরে ঝড়-বৃষ্টি ও বজ্রাঘাতে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে| রতলাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইন্দ্রজিত্ সিং বাকলিওয়ার জানিয়েছেন, রতলাম জেলায় বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে ১৩ বছর বয়সি একটি নাবালিকা এবং ২৫ বছর বয়সি যুবকের| আরও একটি শিশুকন্যা আহত হয়েছে| মধ্যপ্রদেশের সেহারে একজন ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে, আলিরাজপুরে ১৮ বছর বয়সি এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে, ছিন্দওয়ারায় ১৯ বছর বয়সি এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে, আবার রাজগড় জেলার পাদানা গ্রামে ৬৫ বছর বয়সি এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে| প্রাকৃতিক দুর্যোগে প্রাণহানির ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ|

গুজরাট : গুজরাটের বিভিন্ন প্রান্তে অসময়ের ঝড়-বৃষ্টিতে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে| মঙ্গলবার বিকেলের পর থেকে উত্তর গুজরাট এবং সৌরাষ্ট্র অঞ্চলে প্রবল বৃষ্টি ও ধুলো ঝড়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে| রাজ্য সরকারের ডিরেক্টর (ত্রাণ) জি বি মঙ্গলপারা জানিয়েছেন, ‘গুজরাটের বিভিন্ন প্রান্তে প্রাকৃতিক দুর্যোগে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে| বজ্রাঘাত এবং গাছ ভেঙে পড়ার কারণে অধিকাংশ মানুষের মৃত্যু হয়েছে উত্তর গুজরাটে|’

রাজস্থান : প্রবল ধুলো ঝড় এবং বৃষ্টিতে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেল মরুরাজ্য রাজস্থানের বিভিন্ন প্রান্ত| প্রাকৃতিক দুর্যোগে রাজস্থানে অকালেই প্রাণ হারালেন অন্ততপক্ষে ১০ জন| রাজস্থানের ত্রাণ সচিব আশুতোষ এ টি পেডনেকার জানিয়েছেন, ধুলো ঝড় ও বৃষ্টির দাপটে রাজস্থানের ঝালাওয়ারে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, জয়পুরে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের, বারান এবং উদয়পুরে একজন করে প্রাণ হারিয়েছেন| রাজস্থান প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই মৃতদের পরিবারপিছু ৪ লক্ষ টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করা হয়েছে| রাজস্থানে ঝড়-বৃষ্টিতে আরও ৩-৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে| তবে, সরকারিভাবে মৃতের সংখ্যা ১০|প্রশাসন সূত্রের খবর, দমকা হাওয়া ও প্রবল বৃষ্টির দাপটে মঙ্গলবার বিপর্যস্ত হয় রাজস্থানের বিভিন্ন জেলার জনজীবন| রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে উপড়ে পড়ে প্রচুর গাছ ও বিদ্যুতের খুঁটি| রাজস্থানের ঝালওয়ারে বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে দু’টি শিশুর, এছাড়াও দেওয়াল চাপা পড়ে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে| উদয়পুরে বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে একজনের| জয়পুরে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে একজন ব্যক্তির| এমতাবস্থায় আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, আগামী ২৪ ঘন্টা মরুরাজ্যের আবহাওয়া এমনই থাকবে|

মহারাষ্ট্র : মহারাষ্ট্রের নাসিক জেলায় প্রবল ঝড়-বৃষ্টি ও বজ্রাঘাতে মৃত্যু হল ৩ জনের| এই নিয়ে বিগত ৪ দিনে মহারাষ্ট্রে প্রাকৃতিক দুর্যোগে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৭| বুধবার নাসিক জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবারের ঝড়-বৃষ্টির সময় সাতানায় বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে ৭১ বছর বয়সি এক বৃদ্ধার, ডিন্ডোরিতে বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছে ৩২ বছর বয়সি এক যুবকের| এছাড়াও দেভলাতে মন্দিরের একজন পুরোহিত অকালেই প্রাণ হারিয়েছেন| এখানেই শেষ নয়, বজ্রাঘাতে নাসিক জেলায় ন’টি গবাদি পশুর মৃত্যু হয়েছে| প্রশাসন সূত্রের খবর, মালেগাঁও, সাতানা, সিন্নার, নিফাদ এবং নাসিক তেহসিলে প্রবল বৃষ্টিতে ২১টিরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে| কালেক্টরের অফিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মৃতদের পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আর্থিক সাহায্য করা হবে| প্রসঙ্গত, এর আগে গত রবিবার রাতে নাসিক জেলায় বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয়েছিল ৪ জনের|

পঞ্জাব : মঙ্গলবার রাতের ঝড়-বৃষ্টিতে পঞ্জাবে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের| মৃতদের নাম হল, বিজয় কুমার (৪৩) এবং মুক্তসার| পঞ্জাবের ফজিলকায় ঝড়-বৃষ্টির সময় বাড়ির বাইরে থাকায় গাছ ভেঙে পড়ায় মৃত্যু হয়েছে পেশায় শ্রমিক বিজয় কুমারের| অন্যদিকে, আবোহার-এ দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে পেশায় চালক মুক্তসার-এর| ঝড়-বৃষ্টির দাপটে উত্তর প্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, ঝাড়খণ্ড এবং উত্তর-পূর্বের রাজ্য অসম ও মণিপুরেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে| প্রবল বেগে ঝড়-বৃষ্টিতে মধ্য অসমের নগাঁও জেলার অন্তর্গত রাঙলুতে মহিলা-সহ তিন জন আহত হয়েছেন। আহতদের নাম মুসলিম আলি, মুজামুল আলি এবং মমিনা খাতুন|

প্রাকৃতিক দুর্যোগে প্রাণহানির ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী| প্রধানমন্ত্রীর দফতর (পিএমও)-এর পক্ষ থেকে টুইট করে জানানো হয়েছে, ‘মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, গুজরাট এবং মণিপুর-সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঝড়-বৃষ্টিতে প্রাণহানির ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী| দুর্গতদের সহায়তা প্রদানের জন্য সম্ভাব্য চেষ্টা করছে সরকার|’ পিএমও দফতর-এর পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, প্রাকৃতিক দুর্যোগে মৃতদের পরিবারপিছু প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিল থেকে ২ লক্ষ টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী| পাশাপাশি আহতদের পরিবারপিছু ৫০,০০০ টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করা হয়েছে| প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি দুঃখপ্রকাশ করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জে পি নাড্ডা| শোকবার্তায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট এবং দেশের অন্যান্য রাজ্যে অসময়ের বৃষ্টি ও ঝড়ের তাণ্ডবে প্রাণহানির ঘটনায় ব্যহিত| সম্ভাব্য সাহায্য প্রদানের জন্য প্রস্তুত রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার|’ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জে পি নাড্ডা জানিয়েছেন, ‘দেশের বিভিন্ন রাজ্যে অসময়ের ঝড়-বৃষ্টিতে প্রাণহানির ঘটনায় দুঃখিত|’

0 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION