সামগ্রিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ আসছে নির্বাচন কমিশনের উচ্চস্তরের দল
On 17 Mar, 2019 At 02:25 AM | Categorized As Main Slideshow | With 0 Comments
4 Shares

নিজস্ব প্রতিনিধি, আগরতলা, ১৬ মার্চ৷৷ আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ত্রিপরার দুটি আসনের সামগ্রিক প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে আগামীকাল রবিবার রাজ্যে আসছে ভারতের নির্বাচন কমিশনের এক উচ্চস্তরের দল৷ সরকারি সূত্রে জানা গেছে, চারজনের এই দলে থাকবেন উপ-নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন, সচিব অরবিন্দ আনন্দ-সহ অন্যরা৷ সূত্রের খবর, রবিবার সকালের বিমানে তাঁরা রাজধানী আগরতলায় এসে প্রথমে সরকারের শীর্ষ আধিকারিকদের সাথে বৈঠকে মিলিত হবেন৷ এর পর বৈঠক করবেন রাজ্যের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক-সহ অন্যান্য জ্যেষ্ঠ আধিকারিকদের সঙ্গে৷ সব বৈঠকে ভোটের জন্য শান্তিপূর্ণ পরিবেশ আছে কিনা, ভোটের প্রস্তুতি কতটা অগ্রগতি লাভ করেছে এবং তা সুষ্ঠুভাবে চলছে কিনা ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় খতিয়ে দেখবেন তাঁরা৷ পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকায়ও কমিশনের দলটি গিয়ে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের পরিস্থিতির খোঁজখবর নেবেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা৷ জানা গেছে, এবারের নির্বাচনে কমিশন বেশ কিছু নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে৷ অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন করতে এই সব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে৷

এদিকে, লোকসভা নির্বাচনের লক্ষ্যে রাজনৈতিক দলগুলিকে নিয়ে ইভিএম ও ভিভিপ্যাট এর বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হল ত্রিপুরায়৷ রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরনিকান্তির উপস্থিতিতে শনিবার রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে এই কর্মশালা হয় ঊ
আসন্ন লোকসভা নির্বাচন নিয়ে ততর ত্রিপুরাও ঊ শনিবার লোকসভা নির্বাচনের লক্ষ্যে রাজনৈতিক দলগুলিকে নিয়ে ইভিএম ও ভিভিপ্যাট এর বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হল রাজ্যের৷ রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে এই কর্মশালায় ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট নিয়ে মহড়া দেওয়া হয়েছে৷ তাঁরাও প্রতীকী ভোট দিয়ে কার্যপ্রণালি দেখেছেন৷এদিন এবিষয়ে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরনিকান্তি জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশিকা মোতাবেক ভোট যন্ত্রের মহড়া দেওয়া হচ্ছে৷ সম্প্রতি একাধিক স্থানে মহড়া দেওয়া হয়েছে৷ তিনি আরও বলেন, রাজ্যে নির্বাচনী প্রস্তুতি জোরকদমে চলছে৷ নির্বাচন পরিচালনায় কোন ঘাটতি যেন না থাকে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে৷

4 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION