অল্পবিদ্যা ভয়ঙ্করী মহকুমা শাসকের অজ্ঞতায় বিচার পাচ্ছে না মানুষ
On 14 Mar, 2019 At 01:55 AM | Categorized As Main Slideshow | With 0 Comments
28 Shares

বিশেষ প্রতিনিধি, আগরতলা, ১৩ মার্চ৷৷ অনেক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন
টিসিএস অফিসারকে বাদ দিয়ে এই অল্প বিদ্যা ভয়ঙ্করীকে সদর মহকুমা শাসকের আসনে বসানোর
ফলে সাধারণ মানুষ সাধারণ পরিষেবা ও ন্যায্য বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে৷ ইদানিং এমন একটি
জ্বলন্ত প্রমাণ পাওয়া গেছে৷

ঘটনার বিবরণে জানা গিয়েছে, এ ডি নগর থানাতে জনৈক ব্যক্তি প্রদীপ
দাসের বিরুদ্ধে ক্রিমিনাল প্রসিডিউর কোড ১১০ মোতাবেক একটি মামলা রুজু করে৷ মামলার নম্বরPR
No. 130/2019৷ সংশ্লিষ্ঠ থানা এরপর এই মামলাটি অক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট তথা সদর মহকুমা
শাসক অসীম সাহার কোর্টে স্থানান্তরিত করে শুনানির জন্য৷ ক্রিমিনাল প্রসিডিউর  কোডের উপধারা এ,বি,সি,ডি এবং ই অনুসারে মহকুমা শাসক
শুনানী শেষে শাস্তির বিধান সহ মামলার নিষ্পত্তি করবেন তাই আইন৷

অবাক করার বিষয়, সদর মহকুমা শাসকের অফিসে এই মামলাটি আসার পর
আবার নথিভূক্ত হয়৷ যার নম্বর ১১৯/২০১৯৷ নথিভুক্ত হওয়ার পর সদর মহকুমা শাসক অসীম সাহা
এই মামলার শুনানী না করে মামলার ফাইলটি গত সাত মার্চ পশ্চিম ত্রিপুরা জেলা শাসকের নিকট
একটি চিঠিমূলে পাঠিয়ে দেন৷ চিঠির ফাইল নম্বরNo. F.8(2)-SDM/SDR/JDL/2019/378৷ চিঠির
মাধ্যমে অনুরোধ করেন, তিনি যেন এই মামলাটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন৷ উল্লেখ্য, ক্রিমিনাল
প্রসিডিউর কোড ১১০ মোতাবেক জেলাশাসকের এই মামলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া বা দেওয়ার কোন
অধিকার নেই৷

প্রশ্ণ হল অসীম সাহা কি এই মামলার ফাইলটি জেলা শাসকের নিকট বিচারের
জন্য পাঠাতে পারেন৷ তথ্যভিজ্ঞ মহলের বক্তব্য, অবশ্যই পারেন না৷ তাহলে এমনটা হওয়ার কারণ
কি? নিন্দুকেরা বলেন অসীম সাহা অল্পবিদ্যা ভয়ঙ্করী৷ আইপিসি, সিআরপিসি সম্পর্কে তাঁর
সাধারণ জ্ঞানটুকু নেই৷ তাই সাধারণ মানুষের এই ভোগান্তি এবং প্রশাসনের বদনাম৷

সংশ্লিষ্ট মহলের অভিমত, অসীম সাহা তাঁর এক্তিয়ারের বাইরে গিয়ে
জেলা শাসককে এই ফাইলটি পাঠিয়েছেন৷ সুতরাং ইনসাবোর্ডিনেশনের দায়ে অসীম সাহার বিরুদ্ধে
ডিপার্টমেন্টার প্রসিডিং করা জরুরী৷ এই হল স্বচ্ছ ভারতের স্বচ্ছ প্রশাসনের কান্ডারী
অসীম সাহা৷

28 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION