জামায়াতের নতুন দলের নামে ইসলাম বাদ পড়তে পারে, আওয়ামি লিগ বলছে ওটা কৌশল
On 19 Feb, 2019 At 09:02 PM | Categorized As World | With 0 Comments
3 Shares

ঢাকা, ১৯ ফেব্রুয়ারি (হি. স.) : জামায়াতে ইসলামি নতুন দল করছে। জামায়াত ঘনিষ্ঠ সূত্র বলছে, নতুন দলের নামে ইসলাম থাকছে না। বাংলাদেশে কট্টর ইসলামপন্থী দল জামায়াতে ইসলামির আদর্শ ও সাংগঠনিক কাঠামোয় ব্যাপক সংস্কারের সুপারিশের জন্য ইতিমধ্যে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় জামায়াতের ভূমিকার জন্য ক্ষমা না চাওয়া এবং দলে সংস্কারের প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ার অভিযোগ তুলে সম্প্রতি লন্ডন থেকে জামায়াতের সহকারি সেক্রেটারি আবদুর রাজ্জাকের পদত্যাগপত্র পাঠানো এবং মজলিসে শুরার আরেকজন গুরুত্বপূর্ণ নেতাকে বহিষ্কারের পর দলের ভেতরে টানাপড়েনের মধ্যে এই কমিটি গঠন করা হলো। যতদূর জানা যাচ্ছে, একাত্তরে ভূমিকার জন্যে ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নে জামায়াত নেতারা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছেন।

তবে একাত্তর সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধের সময়কার ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাওয়া, বিএনপির সঙ্গ ত্যাগ ও নতুন নামে জামায়াতে ইসলামির রাজনীতি করার আলোচনাকে কৌশল হিসেবে দেখছে শাসক আওয়ামি লিগ।আওয়ামি লিগ নেতারা মনে করছেন, জামায়াত পতিত অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য জনমনের প্রতিক্রিয়া জানতে চাচ্ছে। তাদের মতে, জামায়াতের নেতাদের বিরুদ্ধে চলমান যুদ্ধাপরাধের বিচার এড়ানোর পাশাপাশি যুদ্ধাপরাধের দল হিসেবে চিহ্নিত পাওয়া ও জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া রাজনীতিতে নতুন করে জায়গা করে নিতে চাচ্ছে ওরা। তবে, দেশের মানুষ জামায়াতে ইসলামিকে ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে। তারা যে নামেই আসুক, মানুষ তা গ্রহণ করবে না। জামায়াতের রাজনীতির একজন ঘনিষ্ঠ পর্যবেক্ষক প্রাক্তন সচিব শাহ আবদুল হান্নান বলেছেন, \”তুরস্কে একে পার্টি বা তিউনিসিয়ার এন্নাহদার মত একটি নতুন দল গঠন করার কথা ভাবা হচ্ছে জামায়াতের ভিতরে।\”
অবশ্য রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক রওনক জাহান বলছেন, \”তুরস্ক ও তিউনিসিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের অনেক পার্থক্য রয়েছে। প্রথমত, জামায়াতের দুটি ভূমিকা বাংলাদেশের মানুষ ভুলে যায়নি। তারা স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিল। আর একাত্তরের গণহত্যাকে তারা সমর্থন করেছিল। তুরস্কে বা তিউনিসিয়ায় ইসলামি দলের নেতিবাচক কোনও ভাবমূর্তি ছিল না। দ্বিতীয়ত, বাংলাদেশে মূলধারার গণতান্ত্রিক দল অনেক দিন ধরেই আছে কিন্তু মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে তা নেই। সেখানে ইসলামপন্থী দলগুলোই সামরিক শাসন বা এ ধরনের কাজের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছে।\”প্রশ্ন উঠছে তুরস্ক বা তিউনিসিয়ার ধারায় জামায়াতের পক্ষে কি এখন নতুন আকার নিয়ে কাজ করা সম্ভব? এমন প্রশ্নের জবাবে রওনক জাহান বলেন, \”ঠিক এই মডেল হয়তো কাজ করবে না কিন্তু তাদের সামনে কিছুটা সুযোগ আছে। মূল ধারার গণতান্ত্রিক দল আওয়ামি লিগ পাকিস্তানি আমলে গণতন্ত্র ও স্বাধিকারের জন্য লড়াই করেছে। মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে এই আওয়ামি লিগের নেতৃত্বে।
অন্যদিকে, বিএনপি সামরিক ছাউনিতে গড়ে ওঠা দল, বলা যায়, ইসলাম ও গণতন্ত্রের মিশেল। আওয়ামি লিগের বিরোধিতা করতে গিয়ে আমলা, মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীদেরও দলে টেনেছে। অবশ্য এখন আওয়ামি লিগে আমলা ও ব্যবসায়ীরা ঢুকে গেছে। এই বাস্তবতা সামনে রেখে জামায়াতের নতুল দলকে কাজ করতে হবে। তবে জামায়াত এতদিন বলে এসেছে যে, কোরান তাদের সংবিধান আর এখন বলছে নামের মধ্যে ইসলামি শব্দটাও থাকবে না।\” স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন উঠছে, তাহলে এ ধারায় যারা উগ্রভাবে বিশ্বাস করে তারা কি নতুন রাজনীতিতে বিশ্বাসী হবে? পর্যবেক্ষকরা মনে করেন, \”তারা ধর্মকে একেবারে ছেড়ে দেবে বলে মনে হয় না। যেমনটি তুরস্কের জাস্টিস পার্টি করেছে। এছাড়া জামায়াতের তরুণরা বাইরের দেশগুলো দেখছে, আধুনিক চিন্তাধারার সঙ্গে পরিচিত হচ্ছে। তারা একাত্তরের জামায়াতের দায় নিতে রাজি হবে মনে হয় না। তারা অত্যন্ত সহজেই বুঝবে, একাত্তরে জামায়াতের ভূমিকা দেশের মানুষ ভুলে যায়নি। আর সেটাই হবে জামায়াতের প্রবীণ নেতাদের জন্য বড় সমস্যা।\”শাহ আব্দুল হান্নান বলেছেন, \”জামায়াত নেতৃত্ব রাজনীতিকে আলাদা করে একটি নতুন দল গঠনের ব্যাপারে সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। যতদূর জানা যায়,এই দলের মূল লক্ষ্য বলা থাকবে, একটা কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা। এই দল আলাদা নামে হবে। এ রকম নাম হতে পারে, যেমন বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার পার্টি বা বাংলাদেশ জাস্টিস পার্টি।\” এরকমই প্রস্তাব এসেছে। এই নামের সাথে ইসলাম শব্দ থাকছে না।

3 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION