উত্তরপূর্বের উন্নয়নে পূর্ববর্তী সরকারগুলির কোনও সদিচ্ছাই ছিল না, ইটানগরে প্রধানমন্ত্রী
On 9 Feb, 2019 At 07:43 PM | Categorized As Prodhan Khobor | With 0 Comments
9 Shares

ইটানগর, ৯ ফেব্রুয়ারি (হি.স.) : নয়া ভারত গড়তে উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে বিকশিত করতেই হবে। এবং এই পণ নিয়ে দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে দেশের বর্তমান এনডিএ সরকার। আজ ইটানগরের ইন্দিরা গান্ধী পার্ক ময়দান থেকে ফের অরুণোদয়ের দেশ অরুণচলের উন্নয়ন মানে ভারতের বিকাশ বলে তাঁর স্বপ্নের কথা উদাত্ত ভাষণে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আজ শনিবার সকালে গুয়াহাটির লোকপ্রিয় গোপীনাথ বরদলৈ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিশেষ বিমানে ডিব্রুগড়ের লীলাবতী বিমানবন্দরে অবতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। সেখান থেকে বায়েসেনার হেলিকপ্টারে আসেন ইটানগর।

এখানে বিশাল জনতার সমাবেশমঞ্চ থেকে তিনি বোতাম টিপে প্রথমে উদ্ঘাটন করেন অরুণাচলে প্রথম এবং দূরদর্শনের ২৪-তম বহু প্রতীক্ষিত নয়া চ্যানেল ‘অরুণপ্রভা’-র। এর পর যথাক্রমে সেলা সুরঙ্গের শিলান্যাস করার পাশাপাশি অরুণাচল প্রদেশের হোলেঙি গ্ৰিনফিল্ড বিমানবন্দর এবং জটেতে নিৰ্মীয়মাণ ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট-এর স্থায়ী ভবনের শিলান্যাস করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।শিলান্যাস কার্যক্রমের পর সমবেত বিশাল জনতার উদ্দেশে উদাত্ত ভাষণ শুরু করেন রাজ্যের নিইশি উপভাষায় সম্বোধনের মাধ্যমে। এরপরই প্রধানমন্ত্রী বলেন, আধুনিক অরুণাচল গঠন করতে সুষ্ঠু পরিকাঠামোর প্রয়োজন। এর জন্য গুচ্ছ পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রে তাঁর এবং রাজ্যের পেমা খান্ডু সরকার। গত ৫৫ মাসে কেন্দ্রে তাঁর সরকার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উন্নয়নে কী কী কাজ করেছে তা এখানকার জনসাধারণ দেখছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নিউ ইন্ডিয়া স্বপ্নের বলে উত্তরপূ্র্বে উন্নতি দ্ৰুতগতিতে চলছে। অথচ বিগত পঞ্চান্ন সালে তদানীন্তন সরকারের গাফিলতির কারণে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উন্নয়ন হয়নি। পঞ্চান্ন মাস এবং পঞ্চান্ন বছরের সঙ্গে তুলনা করতে তিনি জনতার প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, এই অঞ্চলকে উন্নত করতে কোনও সদিচ্ছাই ছিল না আগেকার সরকারের। অন্ধকারের গহ্বরে ঠেলে ফেলা হয়েছিল গোটা উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে। এবার গহ্বর থেকে তুলে এই অঞ্চলকে আলোর পথে নিয়ে যেতে কেন্দ্ৰের বর্তমান সরকার তহবিল আবণ্টন এবং ইচ্ছাশক্তির কোনও ঘাটতি হতে দিচ্ছে না। আজ ৪৪ হাজার কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্ঘাটন এবং শিলান্যাস অরুণাচল প্রদেশে হয়েছে, বলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। তিনি বলেন, অরুণাচলের যোগাযোগ ক্ষেত্রে আমূল পরবিৰ্তন করা হবে এবং এর কাজ ইতিমধ্যে দ্রুতগতিতে চলছে, তা রাজ্যের জনতা স্বচক্ষে দেখছেন। এখানকার নির্মীয়মাণ বিমানবন্দর থেকে এখন সরাসরি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে স্থানীয় জনতা যাতায়াত করতে পারবেন।

বাড়বে পর্যটকদের আনাগোনা। এতে অর্থনৈতিক বুনিয়াদ শক্রিশালী হবে।প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে দুহাত ভরে উজার করে সম্পদ দিয়েছে প্রকৃতি। এর উপযোগ আমাদের করতে হবে। পূর্ববর্তী সরকারগুলি কেন প্রকৃতি প্রদত্ত সম্পদের ব্যবহার করতে পারেনি তা তাঁর মাথায় ঢুকছে না। বলেন, জলের অভাব নেই অরুণাচলে। ভরপুর জল ব্যবহার করে বিদ্যুৎ তৈরি করার বিশাল প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।
আজকের অনুষ্ঠানে সভামঞ্চে ছিলেন রাজ্যপাল অবসরপ্ৰাপ্ত ব্ৰিগেডিয়ার ড. বিডি মিশ্ৰ, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজু, মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্ডু, উপ-মুখ্যমন্ত্রী চাওনা মেইন বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি তাপির গাও প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্ডু।এখান থেকে গুয়াহাটির চাংসারির উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

9 Shares

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION