তৃণমূলের ১৯ জানুয়ারির পাল্টা ২৩ শে বিজেপির প্রস্তাবিত সভা, জানালেন রাহুল সিনহা
On 21 Jul, 2018 At 09:21 PM | Categorized As Diner Khobor | With 0 Comments
কলকাতা, ২১ জুলাই (হি.স.) : অাগামী লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে মোদী-বিরোধী জোট গড়তে অাগামী বছরের ১৯ জানুয়ারি তৃণমূলের ব্রিগেড সমাবেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে পাল্টা জনসভার ডাক দিল রাজ্য বিজেপি। মোদী-বিরোধী জোট গড়তে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছেন। কর্নাটকের মন্ত্রিসভার শপথে বিরোধী ঐক্যের যে ছবি উঠেছিল, তারই প্রতিচ্ছবিই ফের তুলে ধরতে চাইছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে তিনি ঘোষণা করলেন, ব্রিগেড ময়দানে বিরোধী সমাবেশ করে লোকসভার আগে মোদী সরকারকে চরম চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে চান। অার তাই অাগামীবছর ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড-সমাবেশ। দেশের বড় বড় দলের নেতাদের নিয়ে আসব আমি।’ এমনকি কংগ্রেস নেত্রী সনিয়া গান্ধীকেও নিজে অামন্ত্রণ জানাতে যাবেন বলে এদিন তিনি ঘোষণা করেন। সভামঞ্চ থেকে জানান তৃণমূল সুপ্রিমো সমর্থকদের উদ্দেশে ব্রিগেড-সমাবেশে ‘একুশে জুলাইয়ের’ থেকে বেশি ভিড়ের নির্দেশ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০১৯-এই ভারতবর্ষ জয় করে বিজেপিকে হটানোর দেন তিনি।
এরপর এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ঘোষণাকে কটাক্ষ করে বিজেপি কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা বলেন, তৃণমূলের এই সভাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে অাগামী ২৩ জানুয়ারি বিগ্রেডে প্রস্তাবিত পাল্টা সভা করবে বিজেপি। অার এই সভায় উপস্থিত থাকতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
দেশের বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির জোটের গুরুত্বপূর্ণ মঞ্চ হিসেবে ব্রিগেড সমাবেশকেই তুলে ধরতে চাইছেন তৃণমূল নেত্রী। ধর্মতলায় ২১ জুলাইয়ের শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকে এই বার্তাই দিলেন তিনি। ‘উনিশেই (জানুয়ারি) উনিশ (২০১৯) দখলের ডাক দেব।’
একাধিক কর্মসূচির মাধ্যমে ১৫ অগাস্ট থেকেই ‘বিজেপি হটাও, দেশ বাঁচাও’ লক্ষ্য নেওয়ার আহ্বান করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো। তার আগে অাগামী ২৮ জুলাই মেদিনীপুরে প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলেই ফের সভা করার কথা জানিয়েছেন তিনি। সভার নেতৃত্বে থাকবেন যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।
বিভিন্ন সময়ে একাধিক আঞ্চলিক দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন তৃণমূল নেত্রী। উত্তরপ্রদেশের অখিলেশ যাদব, মায়াবতী, অন্ধ্রপ্রদেশের চন্দ্রবাবু নাইডু, তামিলনাড়ুতে করুণানিধি-স্ট্যালিন, কর্নাটকের দেবগৌড়া-করুনানিধি, বিহারের লালুপ্রসাদ-তেজস্বীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছেন তৃণমূল নেত্রী। আবার মহারাষ্ট্রের শরদ পাওয়ার, দিল্লির অরবিন্দ কেজরিওয়াল থেকে তেলেঙ্গানার কেসিঅার বা শিবসেনা নেতাদের সঙ্গেও তাঁর সুসম্পর্ক। এই সম্পর্ককে কাজে লাগিয়ে মহাজোটের স্বপ্নে এখন মমতা।

Leave a comment


Powered By JAGARAN – The first daily of Tripura ::: Design & Maintained By CIS SOLUTION